কুকুরের দেহে করোনাভাইরাস


এবার কুকুরের দেহে সন্ধান মিলেছে করোনাভাইরাসের । কুকুরের দেহে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঘটনা এটি প্রথম ।হংকংয়ে দুটি কুকুর করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে বলে শনাক্ত করা হয়েছে।
গবেষকরা ধারনা করছেন যে কুকুরগুলো তাদের মালিকের কাছ থেকে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ।
গবেষকেরা ভাইরাসের জেনেটিক বিশ্লেষন করার মাধ্যমে পেয়েছেন যে - কুকুর দুইটির শরিরে থাকা করোনাভাইরাসের সাথে তাদের মালিকের পরিবারের সংক্রামিত সদস্যদের সাদৃশ্যতা রয়েছে । যা থেকে প্রমান হয়ে যায় যে মালিকের কাছ থেকেই করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে কুকুরগুলো । 
বিজ্ঞান সাময়িকী নেচার এক প্রতিবেদনে বলেছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কুকুর দুটি অসুস্থ হয়নি। কুকুর পরস্পরকে সংক্রমিত করেছে বা কুকুরের কাছ থেকে মানুষ সংক্রমিত হয়েছে, এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।


কুকুরের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার ঘটনায় গবেষনায় নিয়োজিত থাকা হংকং ইউনিভার্সিটির ভাইরোলজিস্ট মালিক পেইরিস জানিয়েন, গবেষকরা সন্দেহ করেছিলেন যে সংক্রমণটি মালিকদের কাছ থেকে কুকুরের কাছে চলে গেছে এবং সরাসরি জিনোমিক লিংক পাওয়ার বিষয়টি সে ধারণাকে দৃঢ় সমর্থন করে।
গবেষণায় কোনো প্রমাণ দেখা যায়নি যে কুকুর থেকে কুকুরে বা মানুষে সংক্রমিত হতে পারে। তবে ভাইরাসটির গতিপথ কোন দিকে, তা নিশ্চিত হওয়া অসম্ভব। তাই আমাদের সব দিক বিবেচনায় রাখতে হবে।
এই গবেষনার মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত মানুষেরা কুকুরকে সংক্রামিত করতে পারে ।  তবে এমনটার আশংঙ্কা কম । কারন, গবেষণায় সংক্রমিত ব্যক্তিদের সাথে থাকা ১৫ টি কুকুরের মাঝে মাত্র ২ টির ক্ষেত্রে সংক্রমন ধরা পড়েছে ।

তবে অনান্য বিজ্ঞানীরা বিষয়টির দিকে জোর দিতে বলেছেন । যাতে ভবিষ্যতে এ থেকে বড় কোনো সমস্যা সৃষ্টি না হয় । তারা এই তদন্ত সঠিকভাবে করার জন্য অনুরোধ করেছেন ।
কুকুর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার ঘটনা এটি প্রথম হলেও এর আগেও কিছু প্রাণীতে করোনাভাইরাসের জীবাণুর সংক্রামন পাওয়া গেছে । এগুলো হলো যথাক্রমে, হংকংয়ে একটি ও নিউইয়র্কে দুটি বিড়াল, নিউইয়র্ক সিটির ব্রোনক্স জুর চারটি বাঘ ও তিনটি সিংহ ।