অ্যানিমেল সেক্স : মজা নয়, সিরিয়াস হবার বিষয়


আমরা সবাই এই দৃশ্যের সাথে পরিচিত। আমাদের মধ্যে অনেকেই অ্যানিমেল সেক্স ব্যপারটাকে খুব মজা হিসেবে নেই৷ রাস্তায় কুকুরদের এই পরিস্থিতিতে পেলে কেউ ঢিল ছুড়ি, হুস হাস করি।
কেউ আবার অতি উৎসাহি, বাশ বা লাঠি নিয়ে আঘাত করে তাদের ছুটাতে চাই।

আসেন একটু বুঝি ব্যপারটা৷ আমাদের মত প্রানি দের ও 'সেক্স' করতে হয়। প্রথমত যেই 'সিস্টেম' এর মধ্য দিয়ে আপনার আমার জন্ম সেই সিস্টেমকে নিয়ে হাসি তামাশাটা খুব একটা মানায় না, হোক সেটা কোনো জীবযন্তুর বা মানুষের।

তো, কেন তারা 'আটকে' যায়?
কুকুরদের সেক্স প্রধানত ২ বা কখনো ৩টা ধাপে সম্পন্ন হয় যার ২য় ধাপ টা হচ্ছে এই 'আটকে যাওয়া' ধাপ৷ একটা পুরুষ কুকুর যখন সেমেন ইজেক্ট করে তখন তার যৌনাঙ্গের পেশি যথেষ্ট শক্ত হয়ে পরে এবং একই সাথে নারী কুকুরের যোনিপথের পেশি ও সংকুচিত হয়ে পরে। ফলে পুরুষ কুকুর তার যৌনাঙ্গ ততক্ষণ নারী কুকুরের যৌনাঙ্গ থেকে বের করতে পারে না যতক্ষণ না উভয়ের পেশি শিথিল হচ্ছে৷ এই সময়টাতে পুরুষ কুকুরের যৌনাঙ্গ থেকে কিছু ফ্লুইড নির্গত হয় যা তার স্পার্মকে আরো দ্রুত ভেতরে ঠেলে দেয়।

এর সময়কাল হতে পারে ৫ থেকে ৪৫ মিনিট।

তাহলে কি হয় যখন আপনি তাদের এই অবস্থায় দৌড়াতে বাধ্য করেন কিংবা কিছু দিয়ে তাদের যৌনাঙ্গে আঘাত করেন?

হ্যাঁ কখনো দ্রুত পেশি শিথিল হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই পেশি ছিড়ে যায় এবং কিছু ক্ষেত্রে নারী কুকুর তার যৌন ক্ষমতা হারায়। কখনো পুরুষ কুকুরের কিডনি কর্মক্ষমতা হারানো সহ আরো সমস্যার সৃষ্টি হয়।

তারা আপনার কোনো ক্ষতি করছে না, আপনার ও তাদের কোনো ক্ষতি করার অধিকার নেই৷ দিন রাত স্টোরিতে কুকুরের বাচ্চার ছবি দিয়ে লাভ রিয়েক্ট কুড়াচ্ছেন ভালো কথা৷ একই সাথে পারলে তাদের কিছু উপকার করেন। আর তা না করলেও সমস্যা নেই, কোনো ক্ষতি কইরেন না প্লিজ।
-সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সংগৃহীত