গোডাউনপরামর্শ

জেলখানায় বই পড়তে দেওয়া উচিত

, April 09, 2019 WAT
Last Updated 2019-10-26T21:25:38Z
Advertisement
A book never harmed anyone by itself. 

আমরা জানি বই আমাদের জ্ঞান বৃদ্ধি করে , মানসিক উদ্দীপনা জাগায় এবং বই একমাত্র মাধ্যম যেটার মাধ্যমে আমরা আমাদের স্ট্রেসকে দূর করতে পারি। কিন্তু দুঃখের কথা হলো বাংলাদেশের জেলখানার কয়েদির কে বাইরে থেকে কোন বই পড়তেই দেয়া হয় না l কারণ এখানকার নীতি তে এ সম্পর্কে কিছু বলা নাইl
অধিকাংশ কয়েদিরা জেলের মধ্যে নির্জনতা ও নিঃসঙ্গতায় সময় কাটায়, এ সময় একটা বই ই তাদের একজন ভালো বন্ধু হতে পারে l কিন্তু বাংলাদেশে কি এটা হতে দেয়া হয় ? তখন তাদের মানসিক চাপ আরো বেড়ে যায়।
জেলখানার ভিতরে কোন বুক স্টোর নেই l যদিও জেলের Actual Boundary এর মধ্যে কিছু Educational facilities রয়েছে কিন্তু সেখানে এরকম কোন বই নেই যেগুলো তারা পড়তে চায় l যেখানে রয়েছে কিছু jail codes , যা তাদের অনেকেই পড়তে চায় না l
একটা পরীক্ষার্থী যখন ছোট্ট কোন অপরাধের জন্য জেলে যায় তখন তো তাকে তার পাবলিক পরীক্ষা প্রিপারেশনের জন্য অন্তত টেক্সটবুক গুলো পড়তে দেওয়া উচিত l কিন্তু এখানকার জেলাগুলোতে তাও করতে দেয়া হয় না , আফসোস l তাকে প্রতিটি মুহূর্ত জামিনের দিন গুণে কাটাতে হয় l
অথচ উন্নত রাষ্ট্রগুলো দিকে তাকালে আমরা দেখতে পাই, UKতে কয়েদিদের বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের সদস্যদের বহির হতে আনা বই পড়তে দেওয়া হয় l US তে আধুনিকতা হিসেবে e-books পড়তে দেওয়া হয় l কিন্তু কি দোষ করল আমাদের বাংলাদেশের কয়েদিরা ?
আমার মনে হয় বাংলাদেশের জেলে Learning Culture চালু করা উচিত l একটা লাইব্রেরীর ব্যবস্থা করা উচিত যেখানে থাকবে সকল প্রকারের বই, Such as উপন্যাস,গল্প,প্রবন্ধ, গদ্য,ধর্মীয় etc এর বই। পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রিপারেশন নেয়ার জন্য Textbooks পড়তে দেওয়া উচিত l কয়েদিদের কে জ্ঞান অন্বেষণ করা থেকে এভাবে বঞ্চিত করা কি উচিত হবে?
এটা ভুলে গেলে হবে না যে "Prison is not just a place of confinement but a place of correctional facility". And, Books can change a life from worse to better...
Inspiration Source : The Daily Star